Friday , September 24 2021
Home / শিক্ষাঙ্গন / সরকারি স্কুলের এই শিক্ষিকার ১ লাইনও পড়ার ক্ষমতা নেই অথচ প্রতি মাসে বেতন নেন 70 হাজার টাকা!

সরকারি স্কুলের এই শিক্ষিকার ১ লাইনও পড়ার ক্ষমতা নেই অথচ প্রতি মাসে বেতন নেন 70 হাজার টাকা!

শিক্ষিত,কথাটির মধ্যে দিয়েই আমরা জেনে এসেছি এক গুরু যাকে সব সময় শীর্ষ আসনে বসিয়ে রাখতে হয়। যিনি আমাদের শিক্ষা দান করেন, আমাদের সঠিক মানুষ হিসেবে তৈরি করতে সাহায্য করে। শিক্ষককে কখনো ছোট করে দেখার কথা ভাবতেই পারেন না কেউ।পুরান

ইতিহাস থেকে দেখা যায় যে রাজা-মহারাজারা ও গুরুর কাছে মাথানত করেছেন। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে শিক্ষা আস্তে আস্তে ব্যবসা দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। যথাযথ শিক্ষা দিতে পারছেন কি শিক্ষকরা? এ প্রশ্নই এখন উঠে আসে সবার আগে। শিক্ষকরা যদি হয় অশিক্ষিত তাহলে ভবিষ্যৎ
সমাজ গড়বে কিভাবে?মাস গেলে ৭০ টাকা বেতন সরকারি স্কুলে শিক্ষক শিক্ষিকাদের।কিন্তু খোঁজ নিলে দেখা যায় স্কুলে ইংরেজি পড়াতে গিয়ে

হিমশিম খাচ্ছে শিক্ষিকা।উত্তর প্রদেশের একটি স্কুলে এমনই ঘটনা চোখে পড়লো জেলা শাসকের। ঘটনাটি ভিডিও সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল
হতে বিক্ষোভে ফেটে পড়ছেন প্রত্যেকে। ভিডিওটি দেখে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, কিসের শিক্ষা যেখানে শিক্ষক-শিক্ষিকা একবিন্দু ইংরাজি বলতে পারছেন না।যে সমাজে পিতা-মাতার শিক্ষাগুরুকে ঈশ্বর মনে করা হয়। অথচ সেই শিক্ষিকার নাকি ইংরেজি বলতে নাজেহাল অবস্থা।

উত্তর প্রদেশের অন্তর্গত একটি স্কুলের শিক্ষা পরিকাঠামো তদারকির জন্য হঠাৎ জেলাশাসক উপস্থিত হন। এরপর তিনি ইংরেজি শিক্ষাকে পাঠ্যবইয়ের ইংরেজি রিডিং পড়তে বলেন। ইংরেজি পড়তে গিয়ে ইংরেজি শিক্ষিকাকে হোচট খেতে হচ্ছে বারবার। এমন দৃশ্য দেখে চক্ষু

চড়কগাছ হয়ে যায় জেলা শাসকের। অবিলম্বে অশিক্ষিত শিক্ষিকাকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। গ্র্যাজুয়েট পাশ করার পর এক বর্ণ ইংরেজী পড়তে পারছেন না স্কুল শিক্ষিকা।শিক্ষিকা শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কিভাবে ইংরেজি না জেনে শিক্ষার্থীদের পড়াচ্ছেন তিনি? আর ইংরাজী এই হার নিয়েই পাস করলেন কিভাবে তিনি? কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে চাকরি পেয়েছেন সেটা নিয়ে তদন্ত করা

হবে। একজন অশিক্ষিত শিক্ষিকাকে চাকরিতে নিয়োগ করা মানে জাতির মেরুদন্ড অর্থাৎ শিক্ষার ক্ষতি করা, শিক্ষার্থীদের ক্ষতি। ইংরেজি না জানা শিক্ষিকার থেকে ইংরেজি শিখবে কি করে শিক্ষার্থীরা। প্রত্যেকের একই প্রশ্ন কোন যোগ্যতায় তিনি এই চাকরি পেয়েছেন তা অবিলম্বে

তদন্ত করা হোক। তদন্ত করতে গিয়ে এমনই শিক্ষক-শিক্ষিকার রূপ ধরা পড়েছে আগেও । চাকরির পরীক্ষার পরিকাঠামো আরও শক্ত করতে হবে বলে মনে করছেন সবাই। সূত্র: জিনিউজ

Check Also

শুধুমাত্র ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে চাকরি দিচ্ছে রাজ্য সরকার, রইল আবেদন পদ্ধতি

শুধুমাত্র ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে চাকরি দিচ্ছে রাজ্য সরকার, রইল আবেদন পদ্ধতি

শুধু ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে চাকরি দিচ্ছে রাজ্য সরকার, রইল আবেদন পদ্ধতি- লিখিত পরীক্ষা নয়, শুধুমাত্র ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *