Sunday , April 18 2021
Home / স্বাস্থ্য / শুধু রাতে জ্বর আসে? আদতে কিন্তু রোগের লক্ষণ! ভুল করেও বিষয়টি উপেক্ষা করবেন না

শুধু রাতে জ্বর আসে? আদতে কিন্তু রোগের লক্ষণ! ভুল করেও বিষয়টি উপেক্ষা করবেন না

শুধু রাতে জ্বর আসে? আদতে কিন্তু রোগের লক্ষণ! ভুল করেও বিষয়টি উপেক্ষা করবেন না- রাতে জ্বর হওয়া সাধারণ কোনও বিষয় নয়। জ্বরের কারণে কেবল রাতে আপনার অস্বস্তি হয় না, সকালেও মধ্যে ক্লান্তি অনুভব করেন। জ্বরের কারণ হতে পারে অনেক কিছু। তাই জ্বর আলাদা

কোনও রোগ নয়, বরং একে লক্ষণ বলাই শ্রেয়। অনেক সময় আমাদের হঠাৎ করে শুধু রাতে জ্বর আসে। দিনের বেলা আপনি দিব্যি সুস্থ্য। অথচ, রাত হলে জ্বর চলে আসে।সারা রাত ছটফট করেন, ঘুম হয়না ও সকালে ক্লান্ত বোধ করেন। মানুষ সাধারণত জ্বর খুব হালকাভাবে
নেয়। কারণ এক বা দুদিন জ্বরের ওষুধ খেলে এটি সেরে যায়। জ্বরের কারণ হতে পারে অনেক কিছু। তাই জ্বর আলাদা কোনও রোগ নয়, বরং

একে লক্ষণ বলাই শ্রেয়। রাতে জ্বর হওয়া সাধারণ কোনও বিষয় নয়। জ্বরের কারণে কেবল রাতে আপনার অস্বস্তি হয় না, সকালেও মধ্যে ক্লান্তি অনুভব করেন। শরীরের তাপমাত্রা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কাঁপুনি, খিদের অভাব, ডিহাইড্রেশন, ডিপ্রেশন, হাইপারঅ্যালগেসিয়া বা অতি অল্পেই অতিরিক্ত যন্ত্রণা বোধ, লেথার্জি, ঘুম ঘুম রেশ থাকে। অনেক সময়ে জ্বর বাড়লে ডিলিরিয়াম বা প্রলাপ বকার মতো লক্ষণও দেখা যায়।

রাতে জ্বর হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে, যেগুলি আপনার অবশ্যই জানা উচিত এবং ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলা দরকার এ ব্যাপারে। কেন সকালে জ্বর নেমে যায়? যদি রাতে উচ্চ জ্বর হয়, তবে এটি প্রায় সকালে চলে যায় এবং আপনি সারা দিন ধরে ভালো অনুভব করেন। তবে ভোরে এই জ্বর কীভাবে নিরাময় হয় তা ভাবার বিষয়। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে দিনের বেলাতে আপনার প্রতিরোধক কোষগুলি কাজ

করতে সক্ষম। যার ফলে এটি দিনে জ্বর বা সর্দি হওয়ার সম্ভাবনা কম করে। তবে রাতের বেলা, রোগ প্রতিরোধক কোষগুলি অনেক কম সক্রিয় থাকে যা শরীরে উপস্থিত ব্যাকটেরিয়াগুলি ধ্বংস করার আশায় আপনার দেহের তাপমাত্রা বৃদ্ধি করে। যার ফলে জ্বর হয়।

রাতে জ্বরের কারণ কী?
বাহ্যিক পাইরোগেনস- পাইরোগেনগুলি জ্বরজনিত উপাদান, সাধারণত এন্ডোটক্সিনের মতো জীবাণু থেকে প্রাপ্ত। এই পাইরোগেনগুলি বাইরে থেকে আপনার শরীরে প্রবেশ করে এবং রাতে জ্বরে আক্রান্ত হয়।
1. ব্যাকটিরিয়া সংক্রমণ-ব্যাকটিরিয়া সংক্রমণও রাতের জ্বরের জন্য দায়ী। ব্যাকটিরিয়া বা ছত্রাকের কারণে এন্ডোকার্ডাইটিস, যক্ষা হতে পারে। যার কারণে রাতে আপনার জ্বর হতে পারে। স্ট্রেস-কখনও কখনও স্ট্রেস এবং ক্লান্তি থেকেও রাতে হঠাৎ জ্বরও সৃষ্টি করে। তাই নিজেকে চাপ থেকে দূরে রাখুন এবং কেবল নিজের শারীরিক সামর্থ্য অনুযায়ী কাজ করুন। যাতে রাতে জ্বরের কোনও অবস্থা না হয়।

2. মূত্রনালীর সংক্রমণ-আপনার যদি মূত্রনালীর সংক্রমণ হয় তবে আপনি কেবল রাতে জ্বর আসতে পারে। আপনার যদি মূত্রনালীর সংক্রমণ সমস্যা হয় তবে এই বিষয়ে যত্ন নিন।

3. অ্যালার্জি-অ্যালার্জি হলেও রাতে জ্বর হতে পারে। কিছু ওষুধ থেকেও এই এলার্জি থাকতে পারে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

4. ত্বকের সংক্রমণ -আপনি হয়ত বিশ্বাস করবেন না, তবে ত্বকের সংক্রমণও রাতে জ্বর হতে পারে। যখন কোনও ব্যক্তির দীর্ঘ সময় ধরে ত্বকে সংক্রমণের সমস্যা থাকে, তখন রাতে জ্বর হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

5. শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ-গলা ব্যথা, সর্দি-কাশি থেকেও রাতে জ্বর হতে পারে। কখনও কখনও এটি কয়েক দিনের মধ্যে নিরাময় হয়, তবে হালকাভাবে নেওয়া গেলে এই সংক্রমণ সহজে যায় না এবং পরে চিকিত্সকের সঙ্গে পরামর্শ করতে হয়।

Check Also

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও গো’পন শ’ক্তি বাড়াতে কালোজিরা খাওয়ার পদ্ধতি

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও গো’পন শ’ক্তি বাড়াতে কালোজিরা খাওয়ার পদ্ধতি

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও গো’পন শ’ক্তি বাড়াতে কালোজিরা খাওয়ার পদ্ধতি- আসুন আমরা জেনে নেই আমাদের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x