Thursday , July 29 2021
Home / রুপচর্চা / শীতে ত্বকের যত্নে কমলা ও কমলার খোসা ব্যবহার করুন এই উপায়ে..

শীতে ত্বকের যত্নে কমলা ও কমলার খোসা ব্যবহার করুন এই উপায়ে..

শীতে ত্বকের যত্নে কমলা ও কমলার খোসা ব্যবহার করুন এই উপায়ে.. – উজ্জ্বল, দাগহীন মসৃণ ত্বক কে না চায়। তবে শীতের এই শুস্কতার জন্য তা সম্ভব হয়ে ওঠে না। এই সময় ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে পড়ে।ফলে ত্বকে ব্রণ, র‍্যাশ সহ দেখা দেয় নানা সমস্যা। এতে ত্বক দেখায়

একেবারে প্রাণহীন।এই শীতেও ত্বকের জেল্লা ধরে রেখে প্রাণবন্ত করতে ব্যবহার করুন কমলা।কমলাতে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি রয়েছে। যা আপনার ত্বকের মৃতকোষ দূর করে ত্বক রাখবে প্রাণবন্ত। চলুন জেনে নেয়া যাক কীভাবে ব্যবহার করবেন কমলা-কমলার খোসা ধুয়ে গুঁড়া

করে বা পেস্ট বানিয়ে রাখুন, প্রয়োজনমতো ব্যবহার করুন যেকোনও ফেসপ্যাকে। কমলার রস ভালো স্কিন টোনার। সকালে ঘুম থেকে উঠে প্রথমে মুখ পরিষ্কার করে নিন। এবার কমলার রসে তুলা ভিজিয়ে চেপে চেপে লাগান ত্বকে। রক্তসঞ্চালন ভালো হবে ও বাড়বে ত্বকের জৌলুস।

কমলার রসের সঙ্গে গোলাপজল আর মধু মিশিয়ে তুলা ভিজিয়ে ত্বক মুছে নিন। শুকিয়ে গেলে ভেজা তুলা দিয়ে মুছে ফেলুন। ত্বক হবে নরম ও কোমল।ত্বকের কালচে দাগ দূর করতে কাজে আসে কমলার রস। কমলার কোয়া সামান্য থেঁতো করে নিন। এর সঙ্গে অল্প দই আর লেবুর রস মেশান।চোখ আর ঠোঁটের চারপাশ বাদ দিয়ে ত্বকে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে হাত ভিজিয়ে ঘষে ঘষে উঠিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের রোদে পোড়া দাগ দূর হবে। গরম পানিতে কমলার খোসার গুঁড়া আর কয়েক ফোঁটা কমলার রস মিশিয়ে ভাপ নিন ত্বকে। ত্বক উজ্জ্বল হবে।হঠাৎ

শা’রীরিক মি’লন বন্ধ করলে মে’য়েদের যা হয়, সকল ছে’লেদের জানা উচিৎ হঠাৎ শা’রীরিক মি’লন বন্ধ করলে মে’য়েদের যা হয়, সকল ছে’লেদের জানা উচিৎ স্বামী-বিয়োগ, বিবাহ-বি’চ্ছেদ, বা অন্য শহরে চাকরি, এধরনের নানাবিধ কারণে মি`লন’তা হা’রিয়ে যেতে পারে না’রীর থেকে। এতে অনেক সময় ক্ষ’তিগ্র’স্থ হয় না’রী শরীর। মা’নসিক দিক থেকে সুখ ও শান্তি চলে যায়। অনেক দেখা দেয়। তবে কিছু

ক্ষেত্রে ভালোও হয়। ভালো-ম’ন্দ মিলিয়ে স’হবা’স বন্ধ হওয়ার কারণে কী’ কী’ আসে জেনে নিন মানুষের সঙ্গে দু’র্ব্য’বহার করতেও শুরু করে দিতে পারেন সেই না’রী। স্ক’টিশ গবেষকদের পরীক্ষায় জানা যায়, স’হবাস বন্ধ হয়ে গেছে এমন ম’হিলাদের নাকি লোকের সঙ্গে কথা বলতেও অ’সুবিধে হয়। এর কারণ, স’হবা’স করার সময় থেকে যে ফি’ল গু’ড কে’মিক্যাল এ’ন্ডোর্ফিন ও অ’ক্সিটোসিন নিঃ’সরিত হয়,

তা বন্ধ হয়ে যাওয়া।ই’উরিনারি ট্র্যা’ক্ট ই’নফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়: স’ঙ্গ’মের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মূ’ত্র’নালীতে সং’ক্রমণ হতে পারে। প্র’স্রাবের সময় জ্বা’লায’ন্ত্রণা শুরু হতে পারে তখন। কিন্তু স’হবাস করা বন্ধ হয়ে গেলে ই’উরিনারি ট্র্যা’ক্ট স’ম্ভাবনা অনেকটাই কমে

যায়। স’র্দি কা’শি প্র’তিরোধ ক্ষমতা কমে যায়: মি’লন- করলে শরীরে রো’গ-জী’বাণুর প্র’বেশ ক’ষ্ট’কর হয়ে ওঠে। অর্থাৎ, শরীরে রো’গপ্র’তিরোধ শক্তি গড়ে ওঠে। পে’নসিলভেনিয়ার উ’ইলকিসবারে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মত, সপ্তাহে অন্তত দু’বার স’হবা’স করলে

ইমিউনোগ্লোবিন অ ছোটো করে বললে, ওমঅ।’ কিন্তু অনেকদিন স’হবা’স বন্ধ থাকলে হৃ’দযন্ত্রে নে’তিবাচক সমস্যা তৈরি করতে পারে। শ’রীর ক’মজো’রি হয়ে পড়ে। নিয়মিত এ’ক্সারসাইজ় করলে বা ট্রে’ডমিলে দৌড়ালেও লাভ হয় না।

Check Also

একটি মাত্র পাতা ব্যবহারে কালো ঠোঁট হয়ে যাবে গোলাপি, শিখে নিন ঘরোয়া উপায়

একটি মাত্র পাতা ব্যবহারে কালো ঠোঁট হয়ে যাবে গোলাপি, শিখে নিন ঘরোয়া উপায়

একটি মাত্র পাতা ব্যবহারে কালো ঠোঁট হয়ে যাবে গোলাপি, শিখে নিন ঘরোয়া উপায়- আজকে আপনাদের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *