Tuesday , May 11 2021
Home / লাইফ-স্টাইল / শরীর নিরোগ ও ফিট রাখতে এই ৫ টি বিষয়ের প্রতি যত্নবান হোন

শরীর নিরোগ ও ফিট রাখতে এই ৫ টি বিষয়ের প্রতি যত্নবান হোন

কে না চায় নিজের শরীর ফিট ও নিরোগ রাখতে? সবাই চায়। তবে ফিট থাকা মানেই কিন্তু রোগ হওয়া নয়। আমাদের মাথায় এখন সবসময় কাজ করে একটু ওজন ঝরিয়ে চিকন শরীর করা। তবে আমরা এটুকু বলতে পারি শরীর ফিট থাকার অর্থই হলো শরীর ঝরঝরে করে ফেলা। চলুন তবে দেখে নিন কীভাবে শরীর ফিট ও নিরোগ রাখবেন:

১। জীবন যাত্রার মান পরির্বতন করা: আমাদের রোজকারর ব্যস্ততাই হলো সব রকমের অনিয়মের প্রাথমিক কারণ। তবে জানেন কি এই ব্যস্ততার মাঝেও নিজের প্রতি সময় বের করে দিতে হবে। প্রতিদিন কমপক্ষে ৭ হতে ৮ ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। তাহলেই আপনার সুস্থ্য থাকার অর্ধেক কাজ হয়ে যাবে। সেই সাথে নিজেকে রাখতে হবে মানসিক চাপ মুক্ত, চিন্তা মুক্ত, টেনশন ফ্রি। অবসর সময়ে শুনতে পারেন পছন্দের গান অথবা পড়তে পারেন পছন্দের বই। মোদ্দা কথা নিজেকে সবসময় আনন্দে রাখার চেষ্টা করুন। তবে আপনি ফিট থাকতে পারবেন।

২। খাদ্য অভ্যাস পরির্বতন: উল্লেখ্য যে, শারীরিক সুস্থ্যতার মূলে রয়েছে সুষম খাদ্যাভাস ও পুষ্টিকর খাদ্যভাস। প্রথমেই বন্ধ করুন খেতে বসে রকমের গল্পগুজব করার অভ্যাস। হোটেল বা রেস্টুরেন্টের খাবারে নয় ভরসা রাখুন বাসায় রান্না করা খাবারে। বাইরের খাবার যতই মুখরোচক হোক না কেন তা যতটুকু সম্ভব পরিহার করুন। সুসাস্থ্য এর অধিকারি হতে হলে অবশ্যই আপনাকে বাড়ির খাবারে পুরেপুরি ভরসা করতে হবে। সেই সাথে অতিরিক্ত তেল, চর্বি
যুক্ত খাবার পরিহার করাই উত্তম।

৩। ধৈর্য ধারণ করুত শিখুন: এই কাজগুলো নিয়মিত করতে পারলে শরীর ও মন এমনিতে ফিট হতে থাকবে। তবে ভাববেন না যে কয়েক দিনে আপনার শরীর ফিট হয়ে যাবে। যে কোন কাজে ধৈর্যসহকারে অপেক্ষা করুন। এই ধৈর্যটুকু সবার থাকে না। এটি আপনাকে হয়ত খানিক সময় অস্থির করে তুলতে পারে তবে বিচলিত হবে না।

৪। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান ও শারীরিক ব্যায়াম: শরীর ও মন ফিট ও নিরোগ থাকার অন্যমত শর্ত হলো পরিমিত পরিমাণে পানি পান করা। একজন সুস্থ্য মানুষের রোজ কমপক্ষে ৭ হতে ৮ গ্লাস পানি পান করা উচিৎ। এই পানি পান আপনাকে ফিট রাখতে সাহায়তা করবে। সেই সাথে রোজ শারীরিক ব্যায়াম এর কোন বিকল্প নেই ফিট থাকতে হলে।

৫। কাছের মানুষদের নিকট হতে পরামর্শ নিন: কোন কাজে হাত দেওয়ার আগে যদি আপনি দোলাচালে ভূগতে থাকেন তবে কাছের মানুষদের নিকট হতে পরামর্শ নিতে ভূলবেন। ঠিক তেমনিই যদি শারীরিক সমস্যাতেও একা একা কোন প্রকার ওষুধ সেবন করা হতে বিরত থাকুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

তবে মাথায় রাখা জরুরি বিষয় যে, উল্লেখিত বিষয়গুলো কিন্তু চর্চার মাধ্যমে আয়ত্ব করা সম্ভব। তাই হয়ত কয়েক মাস সময় লেগে যেতে পারে। এ নিয়ে ঘাবরানোর কোন কারণ নেই।

About Moni Sen

Check Also

কোন ইলিশ পদ্মার আর কোনটির পেটে ডিম, জে’নে নিন

কোন ইলিশ পদ্মার আর কোনটির পেটে ডিম, জে’নে নিন

মাছের রাজা ইলিশ। শুধু নামেই নয়, কাজেও এর পরিচয় মেলে। বাংলাদেশের মোট মৎস্য উৎপাদনের প্রায় ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x