Tuesday , October 27 2020
Home / স্বাস্থ্য / শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণ করে যেসব খাবার
ক্যালসিয়ামের অভাব
image: google

শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণ করে যেসব খাবার

সুস্থ্য ও সুন্দর জীবনের জন্য ক্যালসিয়ামের গুরুত্ব অপরিসীম। কেননা ক্যালসিয়াম আমাদের হাড় ও দাঁতের প্রধান উপাদান। ক্যালসিয়ামের অভাবে শরীরে অনেকরকম সমস্যার সৃষ্টি হয়। মাংসপেশী সংকুচিত হওয়া, হাড়ে ভঙ্গুরতা, খাদ্য গ্রহণে অরুচি, হৃদযন্ত্র সমস্যার সৃষ্টি হওয়া, উচ্চ রক্তচাপ, কোলন ক্যান্সারসহ আরও নানা রকম সমস্যা সৃষ্টি হয়। এটি শরীরে শক্তি যোগায়। ক্যালসিয়াম হাড় গঠনে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করে। সঠিক পরিমাণ ক্যালসিয়াম না পেলে শরীর দুর্বল হয়ে হাড় ভঙ্গুরতার মতো মারাত্মক রোগের সৃষ্টি হয়। যার ভোগান্তি অসহনীয়

ক্যালসিয়ামের অভাবে যেসব রোগ হয়:ক্যালসিয়ামের অভাবে রিকেট নামক রোগের সৃষ্টি হয়। রিকেট রোগের কারণে হাড় নরম ও দুর্বল হয়ে পড়ে। এছাড়া ভিটামিন ডি এর দীর্ঘস্থায়ী অভাবে হাড়ের মারাত্মকভাবে ক্ষতি হয়। এটির দীর্ঘস্থায়ী অভাবে হাড় ফ্র্যাকচার হয়। যারা দীর্ঘস্থায়ী ক্যালসিয়ামের অভাবে ভোগে তারা একপর্যায়ে হাড় ফ্র্যাকচারের সমস্যায় পড়তে পারেন যে কোন সময়ে।

মেয়েদের মনোপোজের পর হাড় ফ্র্যাকচার হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। তাই বয়ঃসন্ধিকালে অবশ্যই ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার বেশি বেশি খাওয়া উচিৎ। ক্যালসিয়ামের অভাবে অস্টিয়োপোরোসিস বা হাড় ক্ষয়ের রোগ হয়। ক্যালসিয়ামের অভাবে হাইপো-ক্যালসিয়মিয়া হয়ে পেশির টান জাতীয় সমস্যার সৃষ্টি হয়।

ক্যালসিয়ামে উৎস: ক্যালসিয়ামের উৎস হলো ছোট চিংড়ি, ছোট মাছের কাঁটা, নরম হাঁড়, দুধ ও দুধজাত খাবার এবং ডাল, ঢেঁড়স, সজনে এবং সবুজ শাক যেমন-কচু শাক, পালং শাক ইত্যাদি। ক্যালসিয়ামের অভাব হলে যেসব খাবার নিয়মিত পাতে রাখবেন….

১। সীম: রাজমা, রেড বিনস সহ যেকোনো ধরণের বিন জাতীয় সবজি খান। এতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন থাকে। ২। মাছ: প্রধানত স্যামন ও সার্ডিন জাতীয় মাছে অর্থাত্ সামুদ্রিক মাছে প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকে। বিশেষ করে এক টুকরো সার্ডিন মাছে প্রায় ৫৭০ মিগ্রা ক্যালসিয়াম থাকে। এছাড়া, কাঁটা সমেত যে কোনও মাছেই এই ক্যালসিয়াম মিলবে। তাই মাছের কাঁটা চিবিয়ে খেতে ভুলবেন না।

৩। কমলা: ভিটামিন সি এবং ক্যালসিয়ামের দুর্দান্ত কম্বিনেশন ভরপুর কমলা। একটি কমলালেবু মানেই শরীরে প্রায় ৬০ মিগ্রা ক্যালসিয়াম। এতেও ভিটামিন ডিও প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়।

৪। ডুমুর ফল: নামটি নিশ্চই শুনেছেন। ডুমুর ফলে যেমন আয়রন থাকে প্রচুর তেমনি থাকে ক্যালসিয়াম। ১ কাপ ডুমুরে প্রায় ২৫০ গ্রাম ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়। একইসাথে ফাইবার, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম থাকায় এটি হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক রাখে। সেই সাথে মাংশ পেশীকে মজবুত করে

৫। আমন্ড: এই ফলটিতে ক্যালসিয়ামের পাশাপাশি প্রচুর প্রোটিনও থাকে। ১ কাপ আমন্ড এ ৪৫২ গ্রাম খনিজ থাকে। দাঁত ও হাড় শক্ত করার সঙ্গে হৃদরোগর ঝুঁকি কমায় এবং স্মৃতিশক্তি বাড়ায়। প্রতিদিন ১ গ্লাস করে আমন্ড দুধ তাই আপনার জন্য খুবই উপকারী। এছাড়া কেউ চাইলে রোজ একমুঠো আমন্ড এমনি খেতে পারেন। সম্ভব হলে নিয়মিত খান আমন্ড।

৬। ভিটামিন ডি:ভিটামিন ডি এর অভাবে ক্যালসিয়াম কাজ করে না আমাদের শরীরে। তাই ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার বেশি বেশি খাওয়া এবং সূর্যালোকে বের হওয়া খুব দরকার। কেননা আমরা সবাই জানি সূর্য এর আলো ভিটামিন ডি এর অন্যতম প্রধান উৎস।

৭। সবুজ শাক সবজি:প্রায় সকল সবুজ শাক সবজিতেই রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। ১ আটি শাকে থাকে ৩২৪ মিগ্রা খনিজ। তাই পাতে রাখুন পালং শাক, ব্রোকলি, বাঁধাকপি, সেলারিসহ যে কেনা ধরণের সবুজ শাকসবজি।

Check Also

এই 2 টি ফল ভুলেও একসাথে খাবেন না! সন্তান হিজড়া হয়ে জন্মাবে

এই দুটি ফল ভুলেও একসাথে খাবেন না! সন্তান হিজড়া হয়ে জন্মাবে – হিজড়া কারা? সাধারণত ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
error: Content is protected !!