Monday , April 19 2021
Home / লাইফ-স্টাইল / রান্নাঘর পরিষ্কার করার ১০টি ঘরোয়া টিপস

রান্নাঘর পরিষ্কার করার ১০টি ঘরোয়া টিপস

রান্নাঘর পরিষ্কার করার ১০টি ঘরোয়া টিপস – রান্না করতে গিয়ে তেলের ছিটে মশলাপাতি পরে কিচেন স্ল্যাব অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্ন হয়ে যায়।

আর রোজকার রান্নাঘর তেলচিটচিটে থাকলে কারোরই ভালো লাগে না। কিচেন স্ল্যাব পরিষ্কার করার ও রান্না ঘরের তেলচিটচিটে ভাব ওঠানোর দশটি টিপস তাই আজকে বলবো। ১. ভিনিগারঃ জলের মধ্যে কয়েক ফোঁটা ভিনিগার মিশিয়ে নিন। এরপর কাপড় দিয়ে স্ল্যাবটি মুছে নিন। রোজ একবার করে রান্নার পরে যদি এটা করা যায় তাহলে তেল চিটচিটে ভাব খুব একটা হবে না কিচেন স্ল্যাবে। সব সময় আপনার রান্নাঘর

পরিষ্কার ও সুন্দর থাকবে। ২. ডিটারজেন্ট বা সার্ফঃ কুসুম গরম জলের মধ্যে কয়েক ফোঁটা ডিটারজেন্ট বা সার্ফ দিয়েও কিচেন স্ল্যাব মুছে নিতে পারেন। তবে এরপর এমনি কাপড় দিয়ে আর একবার মুছে নিতে হবে। সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার এটি করলেই দেখবেন কাজ হচ্ছে।৩. বাজার চলতি কলিনঃ বাজার চলতি কলিন দিয়েও কিচেন স্ল্যাব পরিষ্কার করতে পারেন। এতে জলদি পরিষ্কার হয়। আর নোংরা দূর হওয়ার সাথে সাথে জীবাণু নষ্ট হয়। ৪. পাতি লেবু, জল ও একটু সার্ফঃ একটি পাত্রে পাতি লেবু, জল ও একটু সার্ফ দিয়েও কিচেন স্ল্যাবটি মুছে নেওয়া

যায়। পাতিলেবু ব্লিচিং হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ার ফলে স্ল্যাব পরিষ্কারের সাথে সাথে চকচকে হয়ে ওঠে চোখের নিমেষে। ৫. ডিশওয়াশারঃ ওয়াইপ স্পঞ্জে কয়েক ফোঁটা ডিশওয়াশার দিয়ে কিচেনের স্ল্যাব পরিষ্কার করা যায়। ডিশওয়াশার শুধু বাসন পরিষ্কার নয় রান্নাঘরের তেল চিটচিটে বোতল নানা জিনিস পরিষ্কার করতেও ব্যবহার করতে পারেন। ৬. বেকিং সোডাঃ কিচেন স্ল্যাব টাইলসের হলে জলে কিছুটা বেকিং সোডা দিয়ে মুছে নিন। এর ফলে কিচেন স্ল্যাব ঝকঝকে তকতকে হয়ে যাবে। ৭. টিস্যুঃ কিচেন স্ল্যাবে চা , তরকারির ঝোল ইত্যাদি পড়লে সঙ্গে সঙ্গে একটি

ভেজা টিস্যু দিয়ে মুছে নিন। ৮. হারপিকঃ কিচেন স্ল্যাবটি টাইলসের হলে যেখানে দাগ পড়েছে সেই বরাবর হারপিক দিন,আধঘন্টা পর কাপড়ের ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করুন। ৯. লবণঃ মার্বেলের বা টাইলসের কিচেন স্ল্যাব পরিষ্কার করতে লেবুর রসের সঙ্গে পরিমাণ মত লবণ মিশিয়ে নিন। খেয়াল রাখুন লবণের দানা গুলো যেন গলে যায়। এরপর এই মিশ্রণটি কিচেন স্ল্যাবের দাগ ঘষে মুছে ফেলুন। এরপর পরিষ্কার ভিজে কাপড় দিয়ে আর একবার মুছে নিন। দেখবেন দাগ পরিষ্কার হয়ে গেছে। ১০. টুথপেস্টঃ কিচেন স্ল্যাব এ দাগ ওঠাতে টুথপেস্ট ও ভীষণ

কার্যকরী। দাগের উপর টুথপেস্ট দিন তারপর পনেরো থেকে কুড়ি মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর একটি কাপড়ে একটু ডিটারজেন্ট নিয়ে ঘষতে থাকুন। দাগ উঠে যাবে। বিশেষ টিপসঃ প্রতিদিনের রান্না থেকে সৃষ্টি হওয়া ধোঁয়া যুক্ত বাষ্প একটি তেল চিটচিটে ভাবের সৃষ্টি করে। এর থেকে মুক্তি পেতে চাইলে এই টিপস গুলো মেনে চলুন রান্নাঘর খোলামেলা রাখুন আর রান্না করার সময় দরজা জানলা খুলে রাখুন। রান্না ঘরের মধ্যে বেশি জিনিসপত্র রাখবেন না। ফ্রিজ ওভেন ইত্যাদি রান্নাঘরের বাইরে রাখার চেষ্টা করুন। রান্নাঘরে অতি অবশ্যই ভেন্টিলেটর,এগজস্ট ফ্যান

ইত্যাদি রাখার চেষ্টা করুন। এতে রান্নাঘর থেকে উৎপন্ন হওয়া তেল ধোয়া বাষ্প বাইরে বেরিয়ে যাবে আর রান্নাঘরের মধ্যে তেল চিটচিটে ভাবটাও কম হবে। অন্যান্য টিপসঃ এখন সব বাড়ির রান্নাঘর বড় খোলামেলা হয় না, সেক্ষেত্রে রান্না করতে করতে রান্নাঘরের দেওয়াল তেল চিটচিটে হয়ে যায়। তেলের এই সকল দাগগুলো সহজে উঠতে চায় না। এর থেকে মুক্তি পেতে এই টিপস গুলি ফলো করুন। প্রতিদিন রান্না করার শেষে

কিচেনের বেসিন স্ল্যাব থেকে শুরু করে দেওয়ালে পরা তেল তৎক্ষণাৎ মুছে ফেলুন। এতে রান্নাঘর পরিষ্কার থাকবে বাজারে পাওয়া লিকুইড ক্লিনার দিয়ে রান্নাঘরের তেল চিটচিটে ভাব উঠিয়ে ফেলতে পারবেন। রান্না ঘরের দেওয়ালে তেলের দাগ ওঠাতে সাদা ভিনেগারের ব্যবহার করতে পারেন। সাদা ভিনেগার এর মধ্যে একটি স্পঞ্জ ডুবিয়ে রেখে দিন। এরপরে স্পঞ্জটি হালকা করে নিংড়ে নিন। এর ফলে অতিরিক্ত ভিনেগার স্পন্স

থেকে বেরিয়ে যাবে। এই সময়ে স্পঞ্জটি হালকা ভেজা থাকবে। এইবার এই স্পঞ্জটি দেওয়ালের দাগের জায়গায় ঘষতে থাকুন। এইভাবে পরপর কয়েক দিন করলে দেওয়ালে তেলের দাগ উঠে যাবে।দেওয়ালে তেলের দাগ তুলতে বেকিং সোডা ও খুব কার্যকরী। জলের মধ্যে বেকিং সোডা দিয়ে একটা পেস্ট তৈরি করুন এরপর সেই পেস্ট এর মধ্যে একটি স্পঞ্জ দিয়ে ডুবিয়ে নিন। এরপর ওই স্পঞ্জটি দেওয়ালের তেলের জায়গায়

ঘষতে থাকুন। এর ফলে তেলের দাগ উঠে যাবে। দেওয়াল থেকে তেলের দাগ তুলতে ভিনেগার ও জল মিশিয়ে নিন। এরপর এই মিশ্রণের মধ্যে স্পঞ্জ দিয়ে দেয়ালের দাগের ওপর স্পঞ্জটি ঘষুন। দাগ উঠে যাবে সহজেই।

About Moni Sen

Check Also

সন্তানকে যে ৮টি কথা কখনোই বলা উচিৎ নয়!

সন্তানকে যে ৮টি কথা কখনোই বলা উচিৎ নয়!

সন্তানকে যে ৮টি কথা কখনোই বলা উচিৎ নয়! – আমা’র নিজেদের সন্তানের ভালোর জন্য বকা-ঝকা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x