Wednesday , October 27 2021
Home / সংস্কার / বি’জ্ঞান অনুসারে ১ জন প্রাপ্ত’বয়স্ক সু’স্থ পুরুষ মানুষ ১ বার মে’লা মে’শা কর’লে…

বি’জ্ঞান অনুসারে ১ জন প্রাপ্ত’বয়স্ক সু’স্থ পুরুষ মানুষ ১ বার মে’লা মে’শা কর’লে…

বিজ্ঞান অনুসারে ১ জন প্রাপ্ত বয়স্ক সুস্থ পুরুষ মানুষ ১ বার মেলা’মেশা করলে…- বিজ্ঞান বলে একজন প্রাপ্ত বয়স্ক সুস্থ্য পুরুষ একবার সহ_বাস করলে যে পরিমান বী_র্য নির্গত হয় তাতে ৪০ কোটি শু_ক্রাণু থাকে। তো,লজিক অনুযায়ি মেয়েদের গর্ভে যদি সেই পরিমান শু_ক্রানু স্থান পেতো তাহলে ৪০ কোটি বাচ্চা তৈরি হতো! এই ৪০ কোটি শু_ক্রাণু, মায়ের জরায়ুর দিকে পাগলের মত ছুটতে থাকে, জীবিত থাকে মাত্র

৩০০-৫০০ শু_ক্রাণু।আর বাকিরা ? এই ছুটে চলার পথে ক্লান্ত অথবা পরাজিত হয়ে মারা যায়। এই ৩০০-৫০০ শুক্রাণু, যেগুলো ডি_ম্বানুর কাছে যেতে পেরেছে। তাদের মধ্যে মাত্র একটি মহা শক্তিশালী শু_ক্রাণু ডি_ম্বানুকে ফার্টিলাইজ করে, অথবা ডি_ম্বানুতে আসন গ্রহন করে।

সেই ভাগ্যবান শু_ক্রাণুটি হচ্ছে আপনি কিংবা আমি, অথবা আমরা সবাই। কখনও কি এই মহাযুদ্ধের কথা মাথায় এনেছেন? কেন এই কথা বললাম জানেন? চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক –

১। আপনি যখন দৌড় দিয়েছিলেন” তখন ছিলনা কোন চোঁখ হাত পা মাথা, তবুও আপনি জিতেছিলেন। ২। আপনি যখন দৌড় দিয়েছিলেন”তখন আপনার ছিলোনা কোন সার্টিফিকেট, ছিলোনা মস্তিষ্ক তবুও আপনি জিতেছিলেন। ৩। আপনি যখন দৌড় দিয়েছিলেন তখন আপনার ছিলনা কোন শিক্ষা, কেউ সাহায্য করেনি তবুও আপনি জিতেছিলেন। ৪। আপনি যখন দৌড় দিয়েছিলেন তখন আপনার একটি গন্তব্য ছিলো এবং

সেই গন্তব্যের দিকে উদ্দেশ্য ঠিক রেখে একা একাগ্র চিত্তে দৌড় দিয়েছিলেন এবং শেষ অবধি আপনিই জিতেছিলেন। এর পর, বহু বাচ্চা মায়ের পেটেই ন_ষ্ট হয়ে যায় । কিন্তু আপনি মারা যান নি, পুরো ১০ টি মাস পূর্ণ করতে পেরেছেন । বহু বাচ্চা জন্মের সময় মারা যায় কিন্তু আপনি

টিকেছিলেন । বহু বাচ্চা জন্মের প্রথম ৫ বছরেই মারা যায়। আপনি এখনো বেঁচে আছেন । অনেক শিশু অপুষ্টিতে মারা যায়। আপনার কিছুই হয় নি । বড় হওয়ার পথে অনেকেই দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছে, আপনি এখনো আছেন ।

Check Also

মেয়েরা যে ১০টি বিষয় মনে মনে পুরুষের কাছ থেকে আশা করে

মেয়েরা যে ১০টি বিষয় মনে মনে পুরুষের কাছ থেকে আশা করে

সেই আদিকাল থেকেই চলে আ’সছে নারী ও পুরুষের অনবদ্য প্রে’ম। হাজার হাজার বছরে বদলেছে স’স্পর্কের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *