Home / লাইফ-স্টাইল / পোস্ট অফিসের নতুন স্কীমে এখন 12,500 টাকা বিনিয়োগ করেই হতে পারেন কোটিপতি
image: google

পোস্ট অফিসের নতুন স্কীমে এখন 12,500 টাকা বিনিয়োগ করেই হতে পারেন কোটিপতি

পোস্ট অফিসের নতুন স্কীমে এখন 12,500 টাকা বিনিয়োগ করেই হতে পারেন কোটিপতি – আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষ পোস্ট অফিসে লেনদেন করা বা টাকা জমা রাখা অনেক বেশি সুরক্ষিত মনে করেন অন্যান্য ব্যাংকগুলোর তুলনায়। এবার পোস্ট অফিসের তরফ থেকে একটি

নতুন স্কিম আনা হলো তাদের গ্রাহকদের জন্য। এর আগেও পোস্ট অফিসের তরফ থেকে গ্রাহকদের সুবিধার জন্য নানান ধরনের স্কিম আনা হয়েছে। শুধু তাই নয় পোস্ট অফিসের মাত্র 20 টাকা সঞ্চয়ে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন যে কেউ, কিন্তু ব্যাংকে গ্রাহকদের জন্য এই সুবিধা

দেওয়া হয় না এছাড়াও ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলতে গেলে আপনাকে অনেক রকমের চার্জ দিতে হয়। এর তুলনায় পোস্ট অফিসে অনেক কম চার্জ দিতে হয় গ্রাহকদের। পোস্ট অফিসে এই নতুন স্কিমে কিছু টাকা বিনিয়োগ করেই আপনি হয়ে যেতে পারেন কোটিপতি। কীভাবে বিনিয়োগ

করলে আপনি কোটিপতি হতে পারেন সেই সম্পর্কে নিচে জানানো হলো – পোস্ট অফিসের যে পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড রয়েছে তাতে সঞ্চয় করে আপনার কোটিপতি হওয়ার সুযোগ থাকছে। আপনি যদি পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ডে প্রতিমাসে 12,500 টাকা করে জমা দেন তাহলে এই

সংখ্যা বছরের শেষে হয়ে দাঁড়াবে 1.5 লক্ষ টাকা। এইভাবে যদি আপনি 15 বছর টাকা জমা দেন তাহলে 7.1 শতাংশ হারে সুদ পেয়ে আপনার মোট টাকার পরিমান হয়ে দাঁড়াবে 42.60 লক্ষ টাকা। এরপর দুবার করে পাঁচ বছরের মেয়াদ বাড়ালে মোট 10 বছরের জন্য মেয়াদ বাড়বে।

ফলে আপনার 25 বছরে মোট জমা টাকার পরিমান হয়ে দাঁড়াবে 1 কোটি টাকা। এ নিয়ে ভারত সরকার আগেই জানিয়ে দিয়েছিল যে, প্রভিডেন্ট ফান্ডে আগামী তিন মাসের জন্য নিয়োগকর্তা এবং কর্মচারীর প্রদান করবে। তবে কিছু শর্ত ছিল যেমন, ওই প্রতিষ্ঠানের কমপক্ষে

100 জন কর্মচারী থাকে এবং সেই কর্মচারীদের মধ্যে যেন 90% কর্মচারীর বেতন প্রত্যেক মাসে 15,000 টাকার নীচে হয়। তবে প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানকে বলা হয়েছে এই সুযোগ গ্রহণ করার জন্য সমস্ত কর্মচারীদের ঠিকমতো বেতন দেওয়া এবং সময় মতো ইসিআর ফাইল করতে হবে।

শুধু তাই নয় প্রভিডেন্ট ফান্ড ভোগী দেশের প্রায় 6 কোটি মানুষের জন্য সুখবর নিয়ে এলো কেন্দ্র।বর্তমানে যে মহামারীর কবলে পড়েছে সারা দেশ তার থেকে রেহাই পাবার জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। জমানো টাকার মধ্যে 75% বা তিন

মাসের বেসিক পে এর মধ্যে যেটি কম হবে সেই পরিমাণ টাকা তিনি তার ইপিএফ থেকে তুলতে পারবেন। শ্রম মন্ত্রকের তরফ থেকে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড আমেন্ডমেন্ট স্কিম 2020 লাগু করা হয়েছে 28 শে মার্চ থেকে। সরকারের নয়া নির্দেশিকা তে বলা হয়েছে, এবার থেকে দরকার পড়লে ইপিএফ থেকেও যে কেউ টাকা তুলতে পারবেন।

Check Also

পণ্য কেনার পর ভুলেও ফেলে দেবেন না সিলিকা ব্যাগ!

পণ্য কেনার পর ভুলেও ফেলে দেবেন না সিলিকা ব্যাগ! – সিলিকা (আ’গ্নেয় ধাতব পদার্থ বিশেষ) ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
error: Content is protected !!