Thursday , May 13 2021
Home / দেশ-বিদেশ / নারী-পুরুষের জামার বোতাম ডান-বামে থাকার রহ’স্য

নারী-পুরুষের জামার বোতাম ডান-বামে থাকার রহ’স্য

নারী-পুরুষের জামার বোতাম ডান-বামে থাকার রহ’স্য – শার্টের বোতামগুলো খেয়াল করলে হয়ত দে’খতে পাবেন মেয়েদের বোতাম থাকে শার্টের ডান দিকে এবং মেয়েদের থাকে বাঁ দিকে। তবে কী জন্য এমনটা হয় তা কি জা’নেন? শতকের মাঝামাঝি থেকে বোতাম-যুক্ত জামা’র

চল শুরু হয়। আর সে সময় সাধারণত ধনী ব্য’ক্তিদের জামাতেই বোতাম থাকত। পুরুষরা নিজে’রাই জামা পরতেন। তাই শার্টের বোতাম ডান দিকে লা’গানো থাকত।কিন্তু ধনী মহিলাদের জামা কাপড় পরানোর জন্য আ’লাদা দাসী নিযুক্ত করা হত। দাসীদের জামা পরানোর সুবিধার কথা

চিন্তা করে নাকি মহিলাদের জামা’র বোতাম বাঁ দিকে লা’গানো শুরু হয় বলে দা’বি বিশেষজ্ঞদের। ইতিহাসবিদরা আরো দা’বি করেন, নেপোলিয়ন বোনাপার্টের নির্দে’শেই এমন ব্যব’স্থার চালু হয়। কারণ, নেপোলিয়ন তাঁর একটি হাত সব সময় শার্টের মধ্যে বুকের কাছে ঢুকিয়ে

রাখতেন। মহিলারা নাকি তাঁর এই অভ্যাসটিকে নিয়ে ব্যঙ্গ ক’রতেন। তাই এই সব ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ ব’ন্ধ করার জন্য নেপোলিয়ন নাকি নির্দে’শ দিয়েছিলেন মহিলাদের শার্টের বোতাম উল্টোদিকে অর্থাৎ বাঁ দিকে লা’গানোর জন্য।তবে মহিলাদের জামা’র বোতাম বাম দিকে থাকার আরেকটি গু’রুত্ব পূর্ণ কারণ আছে।

স্ত্রীর যে ৪টি গুণ থাকলে স্বা’মী ভাগ্যবান হয়!
স্বা’মী-স্ত্রী দু’জনের চেষ্টাতেই একটি সংসারে পরিপূর্ণতা আসে। স্বা’মীর জীবনে স্ত্রীর গুরুত্ব অনেক। বিবা’হিত জীবন সু’খ ও শান্তিপূর্ণ করে তুলতে দুজনের ভূমিকাই গুরুত্বপূর্ণ। জানেন কি, স্ত্রীর যদি বিশেষ কিছু গুণ থাকে তবে স্বা’মী হিসেবে আপনি সৌভাগ্যবান। চলুন তবে জেনে

নেয়া যাক তেমনই চারটি গুণের কথা- 1. আপনার পরিবারকে আপন করে নেয়া: বিয়ে মানেই প্রত্যেক স্ত্রীর জন্য নতুন একটি পরিবারে আগমন। বিয়ের পর সব মে’য়েকেই তার স্বা’মীর বাড়িতে যেতে হয়। যে স্ত্রী নতুন বাড়িতে এসে নতুন পরিবারকে আপন করে নেন, নতুন পরিবারের সবকিছুর স’ঙ্গে মিলেমিশে থাকেন, তিনি গুণবতী স্ত্রী। তাই তার স্বা’মী সত্যিই ভাগ্যবান।

2. স্বা’মীকে শ্রদ্ধা করেন: যে স্ত্রী তার স্বা’মীর প্রতি শ্রদ্ধা রাখেন এবং তার নির্দেশ মেনে চলার চেষ্টা করেন, তার স্বা’মী খুবই সৌভাগ্যবান। যে স্ত্রী স্বা’মীর কথা গুরুত্ব সহকারে নেন, সেই স্বা’মীকে সৌভাগ্যবান মনে করা উচিত।

3. মিষ্টভাষী: কথায় আছে, মুখের কথা দিয়েই বিশ্বজয় করা যায়। তবে তা হতে হবে ইতিবাচক। যে স্ত্রী সবার স’ঙ্গে খুব ভালোভাবে কথা বলেন, কারো স’ঙ্গে খা’রাপ ব্যবহার করেন না, সবার স’ঙ্গে মিষ্টিভাবে কথা বলেন তিনি বিশেষ গুণের অধিকারী। আর তার স্বা’মী খুবই সৌভাগ্যবান তা য়ার বলার প্রয়োজন হয় না!

About Moni Sen

Check Also

২ হাজার বছরের মমির গর্ভে আজও অক্ষত সন্তান!

২ হাজার বছরের মমির গর্ভে আজও অক্ষত সন্তান!

২ হাজার বছরের মমির গর্ভে আজও অক্ষত সন্তান! – মিশর নিয়ে মানুষের জল্পনা-কল্পনা তুঙ্গে। বিশেষ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x