Tuesday , May 11 2021
Home / স্বাস্থ্য / জে’নে নিন রাসায়নিক বি’ষ মুক্ত কলা চেনার সহজ উপায়

জে’নে নিন রাসায়নিক বি’ষ মুক্ত কলা চেনার সহজ উপায়

জে’নে নিন রাসায়নিক বি’ষ মুক্ত কলা চেনার সহজ উপায় – কলা খুবই পুষ্টিকর একটি ফল। যা স্বা’স্থ্য ভালো রাখার জন্য খুবই কা’র্যকরী। প্রতিদিন একটি কলা খেলে নানা রো’গ থেকে মু’ক্ত থাকা যায়। তবে এর জন্য অবশ্যই খেতে হবে রাসায়নিক বিষ মু’ক্ত কলা।নইলে শ’রীরে

বাসা বাঁধবে ভ’য়ঙ্কর রো’গ। ফল পাকানোর জন্য ব্যবহার হচ্ছে ক্যালসিয়াম কার্বাইড, এথিলিনের মতো বিভিন্ন রাসায়নিক বিষ।বাজারের এসব ফলে রাসায়নিক বিষের ব্যবহার নতুন কিছু নয়। তবে দীর্ঘদিন ধ’রে এই ধ’রনের রাসায়নিক শ’রীরে গেলে তা থেকে ক্যানসার, কি’ডনির

স’মস্যা, ত্বকের স’মস্যা দেখা দিতে পারে। কারণ কেমিক্যাল কার্বাইডের মতো রাসায়নিকের মধ্যে ফসফরাস, আর্সেনিক থাকে।তাই জে’নে রাখা জ’রুরি কোন ফল রাসায়নিক দিয়ে পাকানো, আর কোনটা স্বা’ভাবিকভাবে পেকেছে। তবেই বিষ মু’ক্ত ফল খাওয়া সম্ভব হবে। চলুন তবে

জে’নে নেয়া যাক যেভাবে বুঝতে পারবেন ফলে রাসায়নিক বিষ রয়েছে- ১. কৃত্রিমভাবে পাকানো হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কলার খোসায় কালো ছোপ পড়তে থাকে। ২. কৃত্রিম পদ্ধতিতে পাকানো কলা স্বা’ভাবিক মিষ্টিভাব থাকে না। বাইরে থেকে হলদে হয়ে গেলেও ভেতরে শক্ত থেকে

যায়। চেহারা শুকনো হয়, রসালো ভাব কম থাকে। ৩. কেনার পরে বালতিতে পানি ভরে তার মধ্যে ফলটি ফেলুন। যদি ফল পানির মধ্যে স’ম্পূর্ণ ডুবে যায়, তাহলে সেটি স্বা’ভাবিকভাবে পেকেছে। তবে যদি ভেসে থাকে, তাহলে বুঝতে হবে, ফলটি কৃত্রিমভাবে পাকানো হয়েছে। ৪.ফল কৃত্রিমভাবে পাকানো হলে গায়ে সবুজ এবং হলুদ রঙের সামঞ্জস্য থাকে না। হলুদ রঙের মাঝে সবুজ সবুজ ছোপ থাকে। এর অর্থ

রাসায়নিকটি ফলের মধ্যে ভালোভাবে মেশেনি। ৫. কৃত্রিমভাবে রাসায়নিকের সাহায্যে পাকানো ফল খেলে তা থেকে বমি, মাথা ঘোরার মতো স’মস্যা হতে পারে। একটানা অনেক দিন খেলে প্র’ভাব পড়ে কি’ডনিতে।

About Moni Sen

Check Also

করোনা নিয়ে মানুষের যত ভুল ধারণা

করোনা নিয়ে মানুষের যত ভুল ধারণা

করোনা নিয়ে মানুষের যত ভুল ধারণা – বিগত ১০০ বছরের এমন অতিমারি আর দেখা যায়নি। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x