Thursday , July 29 2021
Home / সংবাদ / চার চারবার ভোটে জিতে বিধায়ক হয়ে আজো রয়েছেন ঝুপড়িতে! যেখানে অন্যারা বাড়ি গাড়ি করে কোটিপতি

চার চারবার ভোটে জিতে বিধায়ক হয়ে আজো রয়েছেন ঝুপড়িতে! যেখানে অন্যারা বাড়ি গাড়ি করে কোটিপতি

চার চারবার ভোটে জিতে বিধায়ক হয়ে আজো রয়েছেন ঝুপড়িতে! যেখানে অন্যারা বাড়ি গাড়ি করে কোটিপতি – একবার ভোট জিতলেই কোটিপতি, সে জায়গায় দাঁড়িয়ে চারবার ভোটে জিতে বিধায়ক হয়েও গরিব মেহেবুব আলম। পাকা বাড়ি তৈরি করার সামর্থ্য না থাকার কারণে

তিনি বর্তমানে ঝুপড়িতে থাকেন। দেশের সবচেয়ে গরিব রাজ্য বিহারে এবারের ভোটে জিতে ৮১% বিধায়ক আজ কোটিপতি। অন্যান্য বিধায়ক রোজ এখানেই নামি দামি গাড়ি চড়ে বিধানসভা এলাকায চত্বরে ঘোরেন। কিন্তু মেহেবুব আলমের ঘোরার জন্য পা’ই ভরসা। শুধু বিহার নয়,

সারাদেশের ব্যতিক্রমী বিধায়ক তিনি।সিপিআইএমএল লিবারেশনের হয়ে ভোটে দাড়িয়ে জয়লাভ করেছেন মেহেবুব। রাজ্যে সর্বাধিক ৫৩,৫৯৭ ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন তিনি। বিজেপি-জেডিইউ সমর্থিত বিকাশশীল ইনসান পার্টির সমর্থক কে হার মানিয়েছেন। ভোটে জেতার পর

ভাঙাচোরা বাড়িরচৌকিতে বসে তার গলায় মালা পরিয়ে দিচ্ছে তারই ছেলে ।ছবিটি বেশ ভাইরাল হয়েছিল। ২০১৫ সালে যেমন জিতেছিলেন তেমন এবারেও হাসতে হাসতে জিতলেন তিনি। বাংলার সীমানা লাগোয়া কাটিহার জেলার বলরামপুর থেকে দুই বার ভোটে জয়লাভ করেছেন

তিনি। ২০০০ সাল থেকে তিনি বারসোই বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জিতেছেন।এখন সবচেয়ে বেশি ভোটে জিতেছেন বিহারে। দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা জানা মেহেবুব আলম বলেন, সম্পত্তি বৃদ্ধির জন্য রাজনীতি করেন না তিনি।তাঁর কাছে বামপন্থায় অন্যতম পন্থা। নির্বাচন কমিশনের দেওয়া হলফনামায় সম্পত্তির পরিমানের জায়গায় তিনি শূন্য লিখেছেন।দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা জানা মেহেবুব আলম বলেন, সম্পত্তি বৃদ্ধির জন্য রাজনীতি করেন না তিনি।তাঁর কাছে বামপন্থায় অন্যতম পন্থা। নির্বাচন কমিশনের দেওয়া হলফনামায় সম্পত্তির পরিমানের জায়গায় তিনি শূন্য লিখেছেন।

Check Also

Weather Update: প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস, লাল সতর্কতা জারি রাজ্যের যেসব জেলায়

Weather Update: প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস, লাল সতর্কতা জারি রাজ্যের যেসব জেলায়

Weather Update: প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস,- দক্ষিণবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত জারি থাকলেও, ভাবাচ্ছে উত্তরবঙ্গের আবহাওয়া ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *