Thursday , October 29 2020
Home / স্বাস্থ্য / কলার মোচা খাওয়ার ১৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতা
Image: google

কলার মোচা খাওয়ার ১৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

কলার মোচা খাওয়ার ১৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতাকলার মোচা খাওয়ার ১৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতা – বিশেষজ্ঞরা বলেন, রঙিন খাবারে পুষ্টিগুণ বেশি থাকে। মোচাও একটি রঙিন খাবার। এতে রয়েছে প্রচুর পুষ্টি ও খাদ্যগুণ। মোচার পুষ্টিগুণ : মোচা খেতে খুবই সুস্বাদু। পুষ্টিতেও অতুলনীয়।

কলাতে যে সকল পুষ্টি উপাদান থাকে সেগুলো তো থাকেই। তা ছাড়াও মোচাতে থাকে মেন্থলের নির্যাস, যা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। থাকে ফেনলিক অ্যাসিডও। প্রতি ১০০ গ্রাম মোচায় রয়েছে – ভিটামিন ‘এ’, ভিটামিন বি সিক্স, ভিটামিন ‘সি’ ৪২০ মিগ্রা, ভিটামিন ই, প্রোটিন ১.৭

গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৩২ মিগ্রা, ফসফরাস ৪২ মিগ্রা, লৌহ ১.৬ মিগ্রা, ফ্যাট ০.৭ গ্রাম, পটাশিয়াম ১৮৫ মিগ্রা, কার্বোহাইড্রেট ৫.১ গ্রাম, রিবোফ্লেবিন .০২মিগ্রা, আঁশ ১.৩ গ্রাম, থায়ামিন .০৫ মিগ্রা। কী কী উপকার হয়?

১। রজঃচক্র স্বাভাবিক রাখা কলার ফুল রজঃকালীন ব্যথা কমায়। এটি প্রোজেস্টেরন উৎপাদন বৃদ্ধি করে রক্তাল্পতা কমায়। মোচা ২। ওভারিয়ান সিন্ড্রোম পেটের বিভিন্ন সমস্যা যেমন – কোষ্ঠকাঠিন্য, পেটে ফোলাভাব বিশেষ করে ‘পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিন্ড্রোম’ (পিসিওএস) নিয়ন্ত্রণে রাখে। ৩। মন ভালো রাখতে মোচাতে আছে ম্যাগনেশিয়াম, উদ্বেগ ও হতাশা কমায়। মন মেজাজ ভালো রাখে।

৪। ডায়াবেটিস মোচার ফেনলিক অ্যাসিড এবং অন্যান্য বায়োঅ্যাক্টিভ উপাদান রক্তের শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। ৫। বুকের দুধ তৈরিতে মোচায় রয়েছে প্রাকৃতিক ‘গ্যালাক্টাগাগ’। এই বিশেষ উপাদানটি স্তন্যদানকারী মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। ৬। দীর্ঘস্থায়ী সংক্রমণ মোচায় থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উন্মুক্ত রেডিকলের বিরুদ্ধে কাজ করে। হৃদরোগ ও ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়।

৭। দেহগঠনে মোচা কার্বোহাইড্রেট ও প্রোটিন সমৃদ্ধ, তাই দেহ গঠনে সাহায্য করে। ৮। রক্তাল্পতায় মোচায় লৌহ অর্থাৎ আয়রন আছে, অ্যানিমিয়া বা রক্তস্বল্পতা দূর করতে দারুণ সহায়তা করে। ৯। হজমে ও কোষ্ঠকাঠিন্যে মোচার মধ্যে প্রচুর পরিমাণে আঁশ পাওয়া যায়, এটি হজম শক্তি বাড়ায়। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। ১০। ক্যানসার ক্যানসার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাসম্পন্ন মোচা।

১১। দাঁত ও হাড়ে মোচায় ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস থাকায় এটি শিশুদের দাঁত ও হাড়ের গঠন মজবুত করে। তা ছাড়া বয়স্ক নারী-পুরুষ, শারীরিক পরিশ্রমকারী ব্যক্তিদের জন্য মোচা দারুণ উপকারী। ১২। রক্তচাপ প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম রয়েছে মোচায়। তাই মোচা খেলে হাই ব্লাডপ্রেশার কমে। ১৩। চোখের সমস্যায় ভিটামিন ‘এ’ রাতকানা রোগের বিরুদ্ধে, অকালে দৃষ্টিশক্তি হারানো থেকে রক্ষা করে।

১৪। গর্ভাবস্থায় বিশেষজ্ঞরা বলেন, শিশুর প্রায় ৭০ ভাগ মস্তিষ্কের গঠন মায়ের পেটে থাকা অবস্থাতেই হয়ে যায়। তাই গর্ভবতীদের শিশুর সুস্বাস্থ্যের জন্য নিয়মিত মোচা খাওয়া উচিত। ১৫। মেনোপোজ মেনোপজ বা নির্দিষ্ট সময়ে ঋতু বন্ধ হওয়ার পর মেয়েদের হাড় দুর্বল হয়ে পড়ে। সেই সময় হাড়ের গঠন মজবুত করতে খুবই উপকারী মোচা।

১৬। ত্বকের জন্য এতে রয়েছে ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। তাই কলার মোচা অকালে বৃদ্ধ হওয়া ও বয়সের ছাপ পড়া কমায়। ত্বকের গঠন উন্নত করে বলিরেখা দূর করে। চুল ভালো রাখতেও এটি বেশ কার্যকর।

Check Also

কোষ্ঠকাঠিন্যের মহৌষধ ডুমুরের রস!

কোষ্ঠকাঠিন্যের মহৌষধ ডুমুরের রস! – যে নিয়মে খেতে হবে- আমাদের দেশে গ্রামে পথের ধারে ডুমুরের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
error: Content is protected !!