Tuesday , October 20 2020
Home / স্বাস্থ্য / এই ৬টি কারণে আপনার অজান্তেই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট হচ্ছে…
image: 123rf

এই ৬টি কারণে আপনার অজান্তেই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট হচ্ছে…

নিয়মিত শরীর চর্চা ও পুষ্টিকর খাদ্য অভ্যাস আমাদের শরীরে প্রাকৃতিক উপায়ে রাগ প্রতিরোধ করে থাকে। তবে এমন কিছু বিষয় রয়েছে যা আপনার নিজের অজান্তেই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে কমিয়ে দেয়। তাই শুধু নিয়মিত স্বাস্থ্যকর খাবার বা নিয়মিত ব্যয়াম করলেই হবে না। চাই আরও অন্যান্য দিকে নজর দেওয়া। এক নজরে দেখে নিন যেসব কারণে আপনার অজান্তেই আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়………

১। অধিক ভ্রমণ করা: আজকাল ঘুরে বেড়ানো রীতিমত একটা টেন্ড্রে পরিণত হয়েছে। কে কত বেশি নতুন নতুন স্থান দেখতে পারে তা নিয়ে চলে প্রতিযোগীতা। হ্যাঁ ভ্রমণ করা অবশ্যই শরীর ও মনের জন্য ভালো তবে অতিরিক্ত ভ্রমণ নয়। আপনি যদি প্রায়ই ভ্রমণ করে থাকেন কিংবা কাজ বা চাকরির প্রয়োজনে অধিক ভ্রমণ করা হয় তাহলে কিন্তু আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাবে। কেননা ভ্রমণে গিয়ে আপনি নতুন নতুন পরিবেশ, পানি, খাদ্য, জলবায়ু বিশ্রামহীনতার করনে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। ফলে আপনি তাড়াতাড়ি অসুস্থ্য হয়ে পড়তে পারেনন।

২। শরীরের অতিরিক্ত ওজন: শরীরে অতিরিক্ত ওজন থাকাও কিন্তু সমস্যা। শরীরে অতিরিক্ত ফ্যাট হওয়ার অর্থই হলো শরীরে রোগের জন্মভূমি। উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, রক্তে চর্বির পরিমাণ বৃ্দ্ধি, হার্ট অ্যাটাকসহ নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা অনেক বেড়ে যায়। সেই সাথে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যাবস্থ্য দূর্বল হয়ে পড়ে। যার ফলে আপনি অতি সহজেই রোগে ভূগে থাকেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে, বয়স ও উচ্চতা অনুসারে ওজন ৩ কেজির বেশি হলেই ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত হওয়া সম্ভবনা প্রায় ৩০ শতাংশ। কেননা শরীরের অতিরিক্ত জমে থাকা চর্বি থাকার কারণে হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হয়। ফলশ্রুতিতে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থ্য হ্রাস পেতে থাকে।

৩। একাকিত্ব: নিজের মনের মত হাসি আনন্দে থাকা আর একা থাকার মাঝে আকাশ পাতাল ব্যবধান। একাকিত্বের বোধ হৃদযন্ত্রের জন্য মহা বিপদ ডেকে আনতে পারে। অনেক মানুষ রয়েছে যালা তাদের জীবনের বেশিরভাগ সময় একাকিত্বে ভূগে থাকেন এবং একাকিত্বে থাকতে পছন্দ করেন। এত করে মস্তিস্কে ডোপামিনের মাত্রা কমে যায়। ফলে জীবনে চলে আসে অবসাদ। মস্তিস্কে ডোপামিনের এর মত উপকারি হরমোন কমে গেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা পুরোপুরি নষ্ট হয়। একাকিত্বে থাকার কারণে হার্ট অ্যাটক, স্ট্রোক অবসাদ ইত্যাদি রোগের প্রকোপ বেড়ে যায়।

৪। অপুষ্টি খাবার খাওয়া: মানব শরীরে রোগ প্রতিরোধ করার জন্য অবশ্যই চাই নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খাওয়া। পুষ্টিকর খাবার শরীরের ভারসাম্য রক্ষা করে থাকে। যেমন: ভিটামিন, খনিজ, প্রোটিন, স্বাস্থ্যকর আঁশ, চর্বি ইত্যাদি। তাহলে আপনার শরীরে পুষ্টির ঘাটতি পড়বে না এবং শরীর হবে চাঙ্গা। সেই সাথে শরীরের রোগ প্রতিরাধ ব্যবস্থা জোড়দার হবে।

৫। অপর্যাপ্ত ঘুম: শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়ার আরেকটি অন্যতম কারণ হলো অপর্যাপ্ত ঘুম। কেননা একজন সুস্থ্য মানুষের প্রতিদিন কমপক্ষে ৭ হতে ৮ ঘণ্টা ঘুুমানো উচিৎ। যদি এর কম ঘুমান তাহলে এর পুরো প্রভাব পরে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর। মস্তিস্ক সুস্থ্য থাকলে আপনি সারাদিন কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধি পাবে। আর ঘুম পরিমিত না হলে আপনার মস্তিষ্কে নানা সমস্যা দেখা যাবে। যারা দিনে ৮ ঘণ্টার কম ঘুমান তাদের মধ্যে অকাল মৃত্যুর হার অনেক বেশি।

৬। অধিক পরিমাণে অ্যান্টিবায়টিকের ব্যবহার: নানা প্রকার ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়ার কারণে শরীর রোগাক্রান্ত হলে নানা ধরণের অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করে থাকি। এই অ্যান্টিবায়োটিক আমদের শরীরে বিদ্যামান ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়াগুলোকে মেরে ফেলে শরীর সু্স্থ্য করে তোলে। অনেক সময় দেখা যায় দীর্ঘ সময় ধরে অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের কারণে শরীর এর যে স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকে তা নষ্ট হয়ে যায়। তাই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কখনোই এই জাতীয় ওষুুধ সেবন করা উচিৎ নয়।

Check Also

হঠাৎ করে গলা ব্যথা? নিমিষেই ভালো হয়ে যাবে রসুনে

হঠাৎ করে গলা ব্যথা? নিমিষেই ভালো হয়ে যাবে রসুনে – এই সময় ঠাণ্ডা লেগে গলা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
error: Content is protected !!